মুক্তিযুদ্ধার তালিকাভুক্ত না হওয়ার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে-বন ও পরিবেশ মন্ত্রী

173

 

মৌলভীবাজার :  মৌলভীবাজার এম. সাইফুর রহমান সড়কের পিংকি সু-স্টোর নামের জোতার দোকানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে দগ্ধ হয়ে একই পরিবারের পাঁচজনের র্মমান্তকি মৃত্যুর ঘটনায় শুক্রবার (৩১ জানুয়ারী) বিকেলে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন এমপি।

এসময় মন্ত্রী গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে বলেন এই পরিবারটি শহিদ পরিবার ,শহীদ পরিবার হয়েও কি কারনে তাঁরা মুক্তিযুদ্ধের তালিকাভুক্ত হননি এ বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে এবং নিহতদের পরিবারকে পূণর্বাসনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে।

মন্ত্রী বলেন এধরনের দূর্ঘটনা রুখতে মৌলভীবাজার ফায়ার সার্ভিসকে আরো শক্তিশালি হতে হবে, আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করতে হবে,যাতে যথাযথ সময়ে তারা সেগুলোর সঠিক ব্যবহার করতে পাড়ে। এসময় জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন,  পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ, পৌর মেয়র ফজলুর রহমান,  জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাধা পদ দেব সজল,  অজয় সেন,  ব্যবসায়ি নেতৃবৃন্দ ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রি ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে পিংকি সু-স্টোরের সত্বাধিকারী সুভাষ রায় এর শোকার্ত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে সাইফুর রহমান সড়কের একটি বাসায় যান , সেখানে পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান তিনি এবং তাদের সবরকমের সহযোগীতার আশ্বাস দেন।  এসময় মন্ত্রী ক্ষতিগ্রস্ত পরিারকে ১লক্ষ টাকা অনুদান প্রদান করেন।

এর আগে মৌলভীবাজার-হবিগঞ্জ সংরক্তিত আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা জহুরা আলাউদ্দিন আগুনে পুড়ে যাওয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও পরিবারের সদস্যের সাথে মিলিত হয়ে সমবেদনা জানান এবং তাদের পরিবারকে ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদান প্রদান করেন।

এদিকে শুক্রবার  সকালে শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে সাইফুর রহমান সড়কের একটি বাসায় নিহতদের পরিবারের সাথে দেখা করেন মৌলভীবাজার সদর-রাজনগড় তিন আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ । তিনিও গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে, সার্বক্ষণিক এ পরিবারের পাশে থাকবেন বলে জানান।

গত মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে শহরের এম সাইফুর রহমান রোডে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের (সুভাস রায়, তার মেয়ে পিয়া রায় ও বোন দিপা রায়, বাগনে দিপ্তি রায় ও বৈশাখী রায়) পাঁচজন মারাযান। এ ঘটনায় সুভাস রায়ের আত্বীয় বাদী হয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানায় একটি অপমৃত্যুর (মামলা নং-৪) মামলা করেন।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তানিয়া সুলতানাকে প্রধান করে ও পৌরসভার পক্ষ থেকে পৌর কাউন্সিলর জালাল আহমদকে প্রধান করে দু’টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দু’টি তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। উভয় তদন্ত কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে দুর্ঘটনা সংঘঠিত হওয়ার কারণ অনুসন্ধান করে রিপোর্ট প্রদান করবে।

: MB TV মৌলভীবাজার :