পাল্লাতল চা বাগানে মিললো ৫ জনের মরদেহ

170

 

MB প্রতিবেদক :  মৌলভীবাজারের সীমান্তবর্তী পাহারি নির্জন এলাকা পাল্লাতল চা বাগানে রোববার (১৯ জানুয়ারী) সকালে একে একে মিললো ৫ চা শ্রমিকের মরদেহ। এই প্রথম এমন চাঞ্চল্যকর হত্যা কান্ডের ঘটনায় চা বাগানের শ্রমিক,কর্মচারী ও এলাকা বাসীর মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

বড়লেখা উপজেলার পাল্লাতল চা বাগানে পারিবারিক কলহের জের ধরে একই পরিবারের ২জন (মা-মেয়ে) ও দুই প্রতিবেশীসহ ৪ জন খুন হন। ৪জনকে হত্যার পড় নিহতের স্বামি নির্মল নিজ গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন । পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের পাল্লাতল চা বাগানে হত্যা কান্ডের এই ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয়রা বলছেন, পাল্লাতল চা বাগানের টিলায় পাশাপাশি ২টি ঘরে বসবাস করতেন চা শ্রমিক নির্মল ও প্রতিবেশী বসন্ত তাদের পরিবার নিয়ে।  বছর খানিক আগে এ এলাকার চা শ্রমিক জলির বাবা নির্মলকে তার বড়ীতে আশ্রয়দেন, কিছুদিন পড় জলির সঙ্গে বিয়ে হয় নির্মলের ,তারপর থেকে নির্মল এখানে শশুড় বাড়ী থাকতেন । অভিযুক্ত নির্মল মাদকাসক্তও ছিলেন। প্রায়ই তার জগড়া হত জলির সাথে।

প্রতিবেশীরা জানান, ঘটনার দিন ভোর ৫টার দিকে নির্মল ও জলির মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়, কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে নির্মল জলিকে মারধর করলে জলি প্রতিবেশী বসন্তের ঘরের সামনে গিয়ে চিৎকার শুরু করে।  এ এময় নির্মল ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপাতে থাকে। মেয়েকে রক্ষা করতে মা লক্ষি ছুটে আসলে তাঁকেও কোপায় নির্মল। একপর্যায়ে প্রতিবেশি বসন্ত ও তার মেয়ে শিউলি সেখানে এসে ঝগড়া থামাতে চাইলে, দুজনকেই এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে নির্মল। ঘটনাস্থলেই চারজনের মৃত্যু হলে নির্মল বসন্তের ঘরে গিয়ে আত্মহত্যা করে।

এ ঘটনায় গুরুত্বর আহত হয় বসন্তের স্ত্রী কানন। তাকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। চা বাগানের শ্রমিকরা জানান এরা সবাই চা-শ্রমিক ছিলেন তবে নির্মল বাগানের বাহিরের শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন।

ঘটনার পড় প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা গঠনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, এসময় মৌলভীবাজার পিবিআই, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার – মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন ঘটনার পরপরই হত্যার কারণ অনুসন্ধানে কাজ শুরু করেছে পিবিআই।  এ বিষয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বেসরকারি চাবাগান পাল্লাতলে কাজ করেন শতাধিক শ্রমিক, প্রাথমিকভাবে নির্মল এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে জানালেও এর পিছনে অন্য কোন কারন লুকিয়ে আছে কিনা তা দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।