নানা আয়োজনে পবিত্র আশুরা পালিত

160

 

মৌলভীবাজার :  আজ ১০ই মহরম, পবিত্র আশুরা।  দিনটিতে কারাবালার শোকাবহ ও হৃদয়বিদায়ক ঘটনা শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে মুসলিম ধর্মালম্বীরা।  হিজরি ৬১ সনের এই দিনে মহানবি হযরত মুহাম্মদ সা. এর দৌহিত্র ইমাম হোসেইন ও তার পরিবার এবং অনুসারীরা সত্য ও ন্যায়ের পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়ে ফোরাত নদীর তীরে কারবালা প্রান্তরে ইয়াজিদ বাহীনির হাতে শহীদ হন। তখন থেকে দিনটিকে যথাযথ ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালন করে সারা দুনিয়ার মুসলমানরা। সারা দেশে যথাযোগ্য মর্যাদায় আজ পবিত্র আশুরা পালিত হচ্ছে

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা নবাব বাড়িতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে। ডাক ঢোল বাজিয়ে ছুরি মাতমের মাধ্যমে কারবালা প্রান্তর বা ময়দানে গিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদির মাধ্যমে দশ দিনের আশুরার সমাপ্তি হয়।

কুলাউড়ার পৃথিমপাশা নবাব বাড়ি থেকে ১০ মহরম বিকেল তিনটায় শিয়া সম্প্রদায়ের উদ্যোগে বের হয় তাজিয়া মিছিল, যা শেষ হয় রবির বাজারের কাছে স্থানীয় ‘কারবালা ময়দানে’ গিয়ে ছুরি মাতমের মাধ্যমে।

চারশত বছরের এ পূরনো ঐতিহ্যকে ধরে রেখে নবাব পরিবার সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খাঁন বলেন যত অন্যায় এ জগতে আসবে, ইসলামকে বিকৃত করার চেষ্টা করা হবে কিংবা ইসলামের নামে সন্ত্রাস সৃষ্টি করা হবে তাঁর বিরুদ্ধে আমরা জাগ্রত থাকব।

৭ মহররম বিভিন্ন গ্রাম থেকে তাজিয়া মিছিল এসে নওয়াব বাড়িতে জড়ো হয় তা চলে ৯ মহররম রাত পর্যন্ত। ৮ ও ৯ মহররম গভীর রাতে মিছিল বের হয়, যা রবির বাজার প্রদক্ষিণ করে তরপী সাহেব বাড়ি হয়ে শেষ হয় ইমাম পাড়ায়।  ১০ মহররম পবিত্র আশুরার দিনে বিকেল ৩ টায় শুরু হয় মূল তাজিয়া মিছিল। মিছিলে থাকে হাতি, তাজিয়া এবং সোনা রুপার তৈরী বিভিন্ন তৈজসপত্র যা আলম নামে পরিচিত। এসময় হাজার হাজার মানুষ জড়ো হন তাজিয়া মিছিল দেখতে।  তবে নিরাপত্তার জন্য এবছর হাতি মিছিল হয়নি।

শিয়া সম্প্রদায় ঘটা করে আশুরা পালন করলেও এখানে হিন্দু, বৌদ্ব ও খৃষ্টানসহ সকল ধর্মের রয়েছে মিলন মেলা।

:: নিজস্ব প্রতিবেদক – MB TV ::