এক নজরে সুবীর নন্দীর দীর্ঘ ৪০ বছরের ক্যারিয়ার

73

:: MB TV ডেক্স :: দীর্ঘ ৪০ বছরের ক্যারিয়ার , একুশে পদকপ্রাপ্ত সংগীতশিল্পী সুবীর নন্দী। গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। যে গান তাঁকে বাঁচিয়ে রাখবে দীর্ঘদিন। সংস্কৃতি অঙ্গনের সব মানুষই বলছেন, তার মৃত্যু অপূরণীয় ক্ষতি।

সুবীর নন্দী বাংলাদেশের অন্যতম একজন জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী। তিনি বানিয়াচং থানায় নন্দী পাড়া নামক মহল্লায় এক কায়স্থ সম্ভ্রান্ত সঙ্গীত পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতা সুধাংশু নন্দী ছিলেন একজন চিকিৎসক ও সঙ্গীতপ্রেমী। তার মা পুতুল রানী চমৎকার গান গাইতেন। ছোটবেলা থেকেই তিনি ভাই-বোনদের সঙ্গে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতে তালিম নিতে শুরু করেন ওস্তাদ বাবর আলী খানের কাছে। বাবার চাকরি সূত্রে তার শৈশবকাল চা বাগানেই কেটেছে। চা বাগানে খ্রিস্টান মিশনারিদের একটি স্কুলে বিদ্যালাভ শুরু করেন তিনি। ছাত্র জীবনের অধিকাংশ সময়ই তার কেটেছে হবিগঞ্জ শহরে। প্রথমে পড়েছেন হবিগঞ্জ গভঃ হাইস্কুলে। তারপর হবিগঞ্জ বৃন্দাবন কলেজে।

সুবীর নন্দী প্রফেশনাল গানের জগতে আসেন ১৯৭০ সালে ঢাকা রেডিওতে প্রথম রেকর্ডিং এর মধ্য দিয়ে। প্রথম গান ‘যদি কেউ ধূপ জ্বেলে দেয়’ শ্রোতাদের মাঝে আসে ১৯৭২ সালে। গানটির কথা লেখেন মোহাম্মদ মুজাক্কের এবং সুরারোপ করেন ওস্তাদ মীর কাসেম। ৪০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে সুবীর নন্দী গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গানে। চলচ্চিত্রে প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত সূর্যগ্রহণ চলচ্চিত্রে। ১৯৮১ সালে তার একক অ্যালবাম “সুবীর নন্দীর গান” ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে বাজারে আসে। তিনি গানের পাশাপাশি দীর্ঘদিন চাকরি করেছেন ব্যাংকে।

চলচ্চিত্রের সঙ্গীতে অবদানের জন্য পাঁচবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন সুবীর নন্দী। মহানায়ক (১৯৮৪), শুভদা (১৯৮৬), শ্রাবণ মেঘের দিন (১৯৯৯), মেঘের পরে মেঘ (২০০৪) ও মহুয়া সুন্দরী (২০১৫) চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়ে পাঁচবার এই পুরস্কার লাভ করেন। এছাড়াও সঙ্গীতে অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার তাকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।


সুবীর নন্দীর জনপ্রিয় কিছু গান হলো-ও আমার উড়াল পঙ্খী রে , দিন যায় কথা থাকে , পাখি রে তুই দূরে থাকলে , আমার এই দুটি চোখ , কত যে তোমাকে বেসেছি ভালো , একটা ছিল সোনার কন্যা , বন্ধু হতে চেয়ে তোমার , কেন ভালোবাসা হারিয়ে যায় , পাহারের কান্না দেখে , আমি সাত সাগর পাড়ি দিয়ে  এছাড়াও প্রেমের নাম বেদনা, তোমারি পরশে জীবন, তুমি যে আমার কবিতা, বন্ধু তোর বরাত নিয়া, হাবলঙ্গের বাজারে, আমি পথে পথে ঘুরি, নীড় ছোট ক্ষতি নেই, দিন যায় কথা থাকে, বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে, চাঁদে কলঙ্ক আছে, গানেরই খাতায়,-এর মতো জনপ্রিয় গানের কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী।